মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন

Logo
সংবাদ শিরোনাম :
লন্ডনের পথে প্রধানমন্ত্রী অবশেষে সিঙ্গাপুরে গেলেন সুবীর নন্দী মোশাররফ করিমের ফুল এইচডি’র ডাবল সেঞ্চুরি শমী কায়সারের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা ফিডব্যাকের চার দশক পূর্তিতে জমকালো কনসার্ট আজ ওয়ার্নার-রশিদের নৈপুণ্যে জয়ে ফিরল হায়দরাবাদ ওয়ার্নার ঝড়ে হায়দরাবাদের ২১২ বুধবার সকালে দেশ ছাড়বে টাইগাররা আইপিএল ছাড়ার আগে ওয়ার্নারের আবেগঘন বার্তা নতুন জার্সির হাতা কিংবা কলারে যোগ হতে পারে লালের ছোঁয়া কলা মানেই ম্যাজিক! কিডনি সমস্যা দূর করে এলাচ রাগ যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন কুড়িগ্রামে জলাশয়-পুকুর সংস্কারের নামে চলছে ‘পুকুর চুরি’ আইএস’র দায় স্বীকারের বিষয়টি পরীক্ষা করা হচ্ছে : ডিএমপি কমিশনার
আইপিএল ছাড়ার আগে ওয়ার্নারের আবেগঘন বার্তা

আইপিএল ছাড়ার আগে ওয়ার্নারের আবেগঘন বার্তা

১২ ইনিংসে ব্যাট করে ৮টিতে পঞ্চাশ, ১টি একশ! সবমিলিয়ে ৬৯.২০ গড়ে ৬৯২ রান, স্ট্রাইকরেটটাও ১৪৩.৮৬। সংক্ষেপে এটিই হচ্ছে চলতি আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদে খেলা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের পরিসংখ্যান।

এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এবারের আইপিএলে খেলতে নামাটা বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিলো ওয়ার্নারের জন্য। কারণ জাতীয় দলে ফিরতে হলে নিজেকে প্রমাণ করেই ফিরতে হতো তাকে- এমনটাই জানিয়েছিলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কর্তাব্যক্তিরা।

তাই জাতীয় দলে ফেরার লক্ষ্যেই ওয়ার্নারের ভালো খেলার তাড়নাটা ছিলো সবার চেয়ে বেশি। তাই তো ১২ ম্যাচ শেষে আইপিএলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকই নন শুধু, নিকটতম লোকেশ রাহুলের চেয়ে ১৭২ রান বেশি করেছেন তিনি।

তবু এবারের পুরো আইপিএল খেলতে পারছেন না ওয়ার্নার। জাতীয় দল থেকে ডাক আসায় ১২ ম্যাচ খেলেই দেশে ফিরে যাচ্ছেন তিনি। এমনকি সোমবার রাতে নিজের শেষ ম্যাচেও কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে খেলেছেন ৮১ রানের ইনিংস, জিতেছেন ম্যাচসেরার পুরষ্কার।

এমন দুর্দান্ত ছন্দে থেকে পুরো টুর্নামেন্ট শেষ করতে না পারাটা খানিক হতাশাজনকই বটে হায়দরাবাদের জন্য। তবে যেহেতু ওয়ার্নারের মূল লক্ষ্য ছিলো জাতীয় দল, তাই তিনি ফিরে যাচ্ছেন দেশে। আর দেশে ফেরার আগে হায়দরাবাদ সতীর্থ, ভক্ত-সমর্থকদের জন্য আবেগঘন এক বার্তা দিয়েছেন ওয়ার্নার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে ওয়ার্নার লিখেছেন, ‘হায়দরাবাদ পরিবারের পক্ষ থেকে আমি যে সমর্থন ও সহায়তা পেয়েছি, তার বিপরীতে কৃতজ্ঞতা জানানোর মতো যথাযথ শব্দ আমার জানা নেই। শুধু এ মৌসুম নয়, গত মৌসুমেও একইরকম সমর্থন পেয়েছি। দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার অপেক্ষাটা অনেক দীর্ঘ ছিলো আমার, খুব করে চাচ্ছিলাম দলের সঙ্গে খেলতে।

দলের মালিক, সাপোর্ট স্টাফ, খেলোয়াড়, সোশ্যাল মিডিয়া টিম এবং সমর্থকদের মন থেকে ধন্যবাদ আমাকে প্রাণ খুলে স্বাগত জানানোয়। দলের যোগ দেয়ার পথে মাঠে ব্যাট ঘোরানো পর্যন্ত- প্রত্যেকটা মুহূর্ত উপভোগ করেছি আমি। টুর্নামেন্টের বাকি সময়ের জন্য দলের সবাইকে শুভকামনা, সেরা হয়েই শেষ করো তোমরা।’

সংবাটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *